০২ জুন, ২০২০ || ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

শিরোনাম
  ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ১৮৭৩ জন, মৃত্যু ২০ জনের     
৬৯

করোনায় অচল সিরাজগঞ্জের বাঘাবাড়ী নৌ-বন্দর

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৩ মে ২০২০  

ছবি : বিডিপ্রজন্ম৭১

ছবি : বিডিপ্রজন্ম৭১

করোনার প্রভাবে গত একমাস ধরে উত্তরবঙ্গের একমাত্র বাঘাবাড়ী নৌবন্দর বন্ধ রয়েছে। বন্দরে আসছেনা কোনো পণ্যবাহী জাহাজ। এতে হাজারো শ্রমিক বেকার হয়ে মানবেতর জীবন করছেন।

অন্যদিকে, কৃষি উৎপাদনের জন্য সার-বীজবাহী জাহাজ চলাচলের নির্দেশ থাকলেও জাহাজ না আসায় উত্তরবঙ্গে সার সংকটের শঙ্কা রয়েছে। আর সময়মতো সার না পেলে ধান উৎপাদনেও ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উত্তরবঙ্গের একমাত্র নৌবন্দর সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর বাঘাবাড়ী নৌ-বন্দরটি এখন শুনশান নীরবতা। নেই জাহাজের হুইসেলের শব্দ-নেই শ্রমিকদের কোলাহল। বন্দরে ভীড়ছেনা সার, বীজ ও সিমেন্টেসহ অন্যান্য পণ্যবাহী কোন জাহাজ। নিস্তব্ধতা বিরাজ করছে পুরো বন্দর এলাকা। আর এই বন্দরে প্রতিদিন লোড-আনলোড করে যে সকল শ্রমিক জীবিকা করতে সেই শ্রমিকদের নেই কোনো কাজ। কর্মহীন এ সব শ্রমিক মানবেতর জীবনযাপন করলেও এখনো ভাগ্যে জোটেনি সরকারী কোনো সহায়তা।

শ্রমিকরা বলছে, আয় রোজগার বন্ধ হওয়ায় অর্ধাহারে-অনাহারে চলছে তাদের জীবন। এ অবস্থায় সরকারী সহায়তার দাবী শ্রমিকদের। অন্যদিকে, কৃষি পণ্যবহনে জাহাজ চলাচল সচল রাখতে সরকারি নির্দেশ থাকলেও বন্দরে আসছে না কোনো জাহাজ। এ অবস্থায় বন্দরে ও ডিলারদের কাছে মজুদ থাকা সার ইতিমধ্যে শেষ পর্যায়। দ্রুত বন্দরটি চালু না হলে সারসহ কৃষিপণ্য সংকটে নাভী জাতের বোরো ধানসহ অন্যান্য আবাদে ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে।

এ বিষয়ে শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহ মো. শামসুজ্জোহা জানান, নৌ-বন্দর বন্ধ রাখার কোনো সুযোগ নেই। জাহাজ আসছে তবে সংখ্যায় কম। বন্দরটি সবসময় চালু রাখার জন্য দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

স্থানীয় সংসদ সদস্য হাসিবুর রহমান স্বপন জানান, বেকার শ্রমিকদের সহযোগিতা ও বন্দরটি চালু রাখার জন্য বন্দর কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা দেওয়ার জন্য আলোচনা চলছে। খুব শিগগিরই এর সমাধান হবে।

তিনি আরও জানান, উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে বেকার শ্রমিকদের খাদ্য সহায়তার দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন
রাজধানীর বাইরে বিভাগের সর্বাধিক পঠিত