১৮ জানুয়ারি, ২০২০ || ৫ মাঘ ১৪২৬

শিরোনাম
  নির্বাচন পেছানোয় অনশন ভাঙল শিক্ষার্থীরা, ক্যাম্পাসে আনন্দ মিছিল        দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তন        পেছালো এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার তারিখ     
৩৫৪

নওশীনের বিরুদ্ধে মিলার অভিযোগে যা বললেন তিন্নি (ভিডিও)

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩০ এপ্রিল ২০১৯  

শ্রোতাপ্রিয় সংগীতশিল্পী মিলা ইসলাম। ২০১৭ সালে বৈমানিক পারভেজ সানজারির সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তিনি। কিন্তু তাদের দাম্পত্য জীবন দীর্ঘস্থায়ী হয়নি। নারী নির্যাতন ও যৌতুকের অভিযোগে স্বামী সানজারির বিরুদ্ধে মামলা করেন মিলা। সর্বশেষ সংসার জীবনের ইতি টানেন বাংলা পপ গানের এই শিল্পী।

গত ২৪ এপ্রিল সন্ধ্যায় নগরীর বেইলি রোডে একটি রেস্তোরাঁয় সংবাদ সম্মেলন করেন মিলা। সেখানে উপস্থিত ছিলেন মিলার বাবা অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট জেনারেল শহিদুল ইসলাম, মা ও ছোট বোন দিশা। এ সময় মিলা প্রাক্তন স্বামীর বিরুদ্ধে পরকীয়া প্রেমের অভিযোগ করেন। তিনি অভিযোগে জানান, তার ডিভোর্সের আগেই পারভেজ সানজারি অভিনেত্রী নওশীনের সঙ্গে অশ্লীল ছবি আদান প্রদান করতো।

সংগীতশিল্পী মিলার ভালো বন্ধু অভিনেত্রী শ্রাবস্তী দত্ত তিন্নি। ২০০৬ সালে অভিনেতা হিল্লোলকে বিয়ে করেন তিনি। সেই সংসারে জন্ম নেয় কন্যা ওয়ারিশা। ২০১২ সালে বিচ্ছেদ হয় এই দম্পতির। এরপর হিল্লোল বিয়ে করেন নওশীনকে। এদিকে কন্যা ওয়ারিশাকে নিয়ে বর্তমানে কানাডায় বসবাস করছেন তিন্নি। মিলা-সানজারি-নওশীন প্রসঙ্গ নিয়ে যখন সমালোচনার ঝড় বইছে ঠিক তখন এ বিষয়ে তিন্নিও মুখ খুলেছেন।

কানাডা থেকে দেশের একটি ইউটিউব চ্যানেলে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিন্নি বলেন, ‘আমি যখন জানতে পারি ওরা (হিল্লোল-নওশীন) দুজন বিয়ে করেছে। অনেস্টলি বলছি, তখন আমার ভালো লাগা বা খারাপ লাগা কোনো কিছুই ফিল হয়নি। সবাই সবার মতো ভালো থাকুক। কিন্তু যে যার জায়গায় সৎ থাকুক। আর বাংলাদেশ থেকে আসার পর আল্লাহর রহমতে অনেক ভালো আছি। তবে বাংলাদেশকে খুব মিস করি।’

মিলার সংসার ভাঙার জন্য নওশীন দায়ী কিনা? এমন প্রশ্নের উত্তরে তিন্নি বলেন, ‘এটা তো যাচাই করার আর কিছু নেই। মিলা তার সলিড জায়গা থেকে কথাগুলো বলছে। আমি মিলার লাইভ দেখেছি। যেখানে অন্য মেয়েদের নামের সঙ্গে নওশীনের নাম উঠে আসে। সে অভিযোগ করে, তার স্বামীর সঙ্গে নওশীনের সম্পর্ক ছিল। আমাদের (তিন্নি-হিল্লোল) বিচ্ছেদের সময় সহকর্মী হিসেবে নওশীনের কাছে তখন আমি কী সাপোর্ট চাইব, তার আগেই তো হিল্লোলকে সাপোর্ট দিয়ে বিয়ে করে সে (নওশীন)। এটা আর নতুন করে কি বলব। এখন আমার কাছে পুরো ব্যাপারটা মনে হচ্ছে— কেঁচো খুঁড়তে সাপ বেরিয়ে এসেছে। আর স্বামী থাকা অবস্থায় আরেকজনকে ছবি পাঠানো... আই ডোন্ট হ্যাভ অ্যানি ক্লু অ্যাবাউট ইট... অ্যান্ড দ্যাটস দ্য মেইন থিং।’

আপনার আর হিল্লোলের বিচ্ছেদের ক্ষেত্রে দোষটা কার ছিল? এ প্রসঙ্গে তিন্নি বলেন, ‘দোষটা কার সেটা জানি না। ওরা (হিল্লোল-নওশীন) ওদের আন্তরিকতা থেকে বিয়ে করেছে। আমি যদি জানতাম, পারভেজ সানজারির সঙ্গে শুধু নওশীনের প্রেম তবে বলতে পারতাম সমস্যাটা শুধু নওশীনের। এখন নওশীন যদি এই দুটি গল্পের একটি চরিত্র হয়, তবে মানুষ স্বাভাবিকভাবেই বুঝতে পারবে কোথা থেকে কি হচ্ছে। আমার সংসার ভাঙছে কিন্তু দোয়া করি ওরা (নওশীন-হিল্লোল) যেন ভালো থাকে।’

দেখুন তিন্নির দেওয়া সেই সাক্ষাৎকার...

 

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত