১৯ অক্টোবর, ২০১৯ || ৪ কার্তিক ১৪২৬

শিরোনাম
  বুয়েট শিক্ষার্থীদের সঙ্গে উপাচার্যের বৈঠক চলছে        আবরার হত্যায় ৫ দিন করে রিমান্ডে অমিত-তোহা     
৬০

ভাদ্রের বিদায়বেলায় বৃষ্টির ভিন্ন রূপ

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

বৃষ্টিকে শিশুদের উল্লাস। ছবি : সংগৃহীত

বৃষ্টিকে শিশুদের উল্লাস। ছবি : সংগৃহীত

এখনকার আবহাওয়ার গতিপ্রকৃতি বোঝা বড় মুশকিল। এই ভালো তো এই খারাপ। এই নীল আকাশ, তো এই কালো মেঘ।
এবার শ্রাবণের ঘোর বর্ষাকালে সারা দেশেই বৃষ্টি কম হয়েছে। ভাদ্রের অবস্থা ঠিক যেন উল্টো। ভ্যাপসা গরম নেই। প্রকৃতিতে পুরোদস্তুর বর্ষার রূপ। ছিটেফোঁটা নয়, একেবারে ভারী বৃষ্টি ঝরছে দেশজুড়ে।
বৃষ্টির মাত্রা এতটাই বেশি যে দেশের সমুদ্রবন্দরগুলোকে ৩ নম্বর সতর্কসংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।
শুধু সাগর নয়, উত্তাল হয়ে আছে নদ-নদীও। এ জন্য নৌবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্কসংকেত দেখাতে হবে।
এখনকার বৃষ্টির ধরনটা কেমন যেন অন্য রকম। আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে দেখা গেছে, রাজধানী ঢাকার ফার্মগেট এলাকায় ঝপঝপ করে হচ্ছে বৃষ্টি। এক কিলোমিটারের কিছুটা দূরে মহাখালীর উড়ালসড়কের সামনে বৃষ্টি হচ্ছে গুঁড়ি গুঁড়ি।
আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের মতে, আকাশে প্রচুর কালো মেঘের উপস্থিতি আছে। বাতাসের কারণে এই মেঘগুলো স্থির থাকছে না। দ্রুত ভেসে যাচ্ছে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে। কালো মেঘ দ্রুত সরে সরে যাওয়ায় স্বল্প দূরত্বের এলাকার মধ্যে বৃষ্টির তারতম্য হচ্ছে।
আবহাওয়াবিদ আরিফ হোসেন বলেন, ‘মৌসুমি বায়ুর কারণে এখন দেশজুড়ে বৃষ্টি হচ্ছে। আজ সারা দিন এভাবেই বৃষ্টি হবে। তবে আগামীকাল থেকে বৃষ্টি কমার সম্ভাবনা রয়েছে।’
আবহাওয়া অধিদপ্তরের আজ সকালে পূর্বাভাস থেকে জানা যায়, মৌসুমি বায়ু ভারতের রাজস্থান, উত্তর প্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, হরিয়ানা, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চল পেরিয়ে বিস্তৃত হয়েছে। এই বায়ুর একটি অংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত আছে।
তা ছাড়া মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশজুড়ে সক্রিয়। এ কারণে রংপুর, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অধিকাংশ জায়গায়; ঢাকা, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রাজশাহী ও খুলনা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় আজ হালকা থেকে ভারী বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে বজ্রপাতেরও আভাস দেওয়া হচ্ছে।
তবে দেশের কোথাও কোথাও ভারী বৃষ্টিরও পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। বৃষ্টির কারণে দিনের তাপমাত্রা কমলেও রাতে সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে।
গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে আজ শুক্রবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত সারা দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ১৮১ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুণ্ড উপজেলায়। একই সময় রাজধানী ঢাকায় বৃষ্টির পরিমাণ ছিল ১০ মিলিমিটার। তবে দেশের আটটি বিভাগের মধ্যে তুলনামূলক ভারী বৃষ্টি হচ্ছে চট্টগ্রাম ও বরিশাল বিভাগে।
ভারতের আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, পশ্চিমবঙ্গ, আসাম, বিহার, মেঘালয়, সিকিম, অরুণাচল, উত্তরাখন্ডসহ দেশটির উত্তরাঞ্চলের রাজ্যগুলোতে ভারী বৃষ্টি হচ্ছে। আগামীকাল থেকে এসব অঞ্চলে বৃষ্টির মাত্রা কমে আসতে পারে।
 

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত