২৩ অক্টোবর, ২০২০ || ৭ কার্তিক ১৪২৭

শিরোনাম
  বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ‘টেকসই ভবিষ্যৎ’ নিশ্চিতের আহ্বান প্রধানমন্ত্রী        অবশেষে হাসপাতাল ছাড়লেন ইউএনও ওয়াহিদা        অবশেষে হাসপাতাল ছাড়লেন ইউএনও ওয়াহিদা     
৪২৪

যাত্রা শুরু করল ‘মিডিয়াস্কুল’

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১ জুলাই ২০২০  

সাংবাদিকতা, গণমাধ্যম ও যোগাযোগ বিষয়ে সহজ ভাষায় পাঠের আয়োজন করেছে 'মিডিয়াস্কুল'। সংশ্লিষ্ট বিষয়ের শিক্ষার্থী, গণমাধ্যমকর্মীসহ এ বিষয়ে জানতে আগ্রহীরা এখানে একটি প্লাটফর্মেই তথ্যবহুল ও বৈচিত্র্যপূর্ণ পাঠ পাবেন। 

আর এমন প্রচেষ্টা থেকেই আজ বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করল মিডিয়াস্কুল ডট এক্সওয়াইজেড (www.mediaschool.xyz)। অ্যাকাডেমিক এই ওয়েবসাইটের প্রতিষ্ঠাতা সেন্ট্রাল উইমেন্স ইউনির্ভাসিটির জার্নালিজম অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারপারসন ও সহকারী অধ্যাপক সজীব সরকার। 

শিক্ষাসহায়ক এই সাইটের সহ-প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে রয়েছেন লেখক, গবেষক ও প্রাবন্ধিক নুসরাত জাহান। এছাড়া চিফ কনটেন্ট এডিটর হিসেবে রয়েছেন আমাদের সময় পত্রিকার জ্যেষ্ঠ সহ-সম্পাদক জাহাঙ্গীর সুর এবং কনসালট্যান্ট-মিডিয়া অ্যান্ড স্পেশাল অ্যাফেয়ার্স হিসেবে আছেন আমাদের সময় পত্রিকার সহ-সম্পাদক মাজেদুল হক তানভীর।

মিডিয়াস্কুলে বৈচিত্র্যপূর্ণ বিষয়ের ওপর লেখা যোগ করা হচ্ছে। তবে সাংবাদিকতা, গণমাধ্যম, যোগাযোগ, সমাজ, সংস্কৃতি, মনঃস্তত্ত্ব, জেন্ডার, রাজনীতি, দর্শন, সাহিত্য ইত্যাদি বিষয়কে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

এই উদ্যোগের বিষয়ে সজীব সরকার বলেন, আমার শিক্ষকতার অভিজ্ঞতায় দেখেছি, সহজবোধ্য টেক্সট না পেলে শিক্ষার্থীদের অনেকে পড়ার প্রতি আগ্রহ হারায়। ফলে তারা পাঠের বিষয়বস্তু না বুঝে পরীক্ষার আগের রাতে কেবল মুখস্থ করে পরীক্ষা পাসের চেষ্টা করে। অথচ সহজবোধ্য রিডিং ম্যাটেরিয়ালস পেলে তারা কেবল মুখস্থ করার বদলে পাঠের বিষয়বস্তু বুঝে পড়তে আগ্রহী হয়। আমার মনে হয়েছে, দরকারি রিডিং ম্যাটেরিয়ালস একটি নির্দিষ্ট প্লাটফর্মে এবং সহজবোধ্য ভাষায় সহজলভ্য করা গেলে শিক্ষার্থীরা পড়াশোনায় আগ্রহ পাবে।

তিনি বলেন, আরেকটি বিষয় অস্বীকার করা যায় না- সময় ও প্রযুক্তি অঙ্গাঙ্গিভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। এখনকার তরুণরা অনেক বেশি প্রযুক্তি-নির্ভর। তারা অনেক বেশি সময় ইন্টারনেটে যুক্ত থাকে। তাদের চাহিদা অনুযায়ী পড়াশোনার ধরন অ্যাডজাস্ট করা দরকার; না হলে তারা পাঠ-বিমুখ হবেই। মিডিয়াস্কুল-এর উদ্দেশ্য হলো, সংশ্লিষ্ট বিষয়ে পর্যাপ্ত রিডিং ম্যাটেরিয়াল তৈরি করা। দরকারি পাঠ সহজবোধ্য ও সহজলভ্য হলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে পড়াশোনার প্রতি আগ্রহ বাড়বে যা পর্যায়ক্রমে তাদের মূল বা মূলানুগ টেক্সট এবং বেশি বেশি রেফারেন্স ম্যাটেরিয়ালস পড়তেও আগ্রহী করবে।

তিনি বলেন, মূলত এমন ভাবনা থেকেই মিডিয়াস্কুল। পাশাপাশি শিক্ষক হিসেবে শিক্ষার্থী ও সমাজের প্রতি বাড়তি দায়িত্ব পালনের তাড়নাও রয়েছে। আর করোনাভাইরাসসৃষ্ট বর্তমান পরিস্থিতিতে বেশ বোঝা যাচ্ছে, শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালন ব্যবস্থার সাথে নতুন যোগাযোগ প্রযুক্তির সমন্বয় কতোটা গুরুত্বপূর্ণ।

মিডিয়াস্কুলের সহ-প্রতিষ্ঠাতা নুসরাত জাহান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিষয় নিয়ে পড়ার সময় এ বিষয়ের ভালো মানের বই-পত্রের অভাব বোধ করেছি। সাংবাদিকতা, যোগাযোগ ও গণমাধ্যমসহ প্রাসঙ্গিক বিষয়গুলো সম্পর্কে পড়াশোনা ও প্রায়োগিক জ্ঞানলাভের প্রয়োজনে শিক্ষার্থীদের জন্যে তথ্যবহুল কিন্তু সহজবোধ্য ভাষায় রিডিং ম্যাটেরিয়ালস এখনো বেশি সহজলভ্য হয়নি। এ কারণেই আমাদের ‘মিডিয়াস্কুল’ করার ভাবনা। চেষ্টা করছি মিডিয়াস্কুল-কে এমনভাবে প্রস্তুত করতে, যেখানে শিক্ষার্থী-শিক্ষকসহ এ বিষয়ে জানতে আগ্রহীরা পর্যাপ্ত রিডিং ম্যাটেরিয়ালস পাবেন।'

আরও পড়ুন
শিক্ষাঙ্গন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত