২৩ অক্টোবর, ২০২০ || ৭ কার্তিক ১৪২৭

শিরোনাম
  বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ‘টেকসই ভবিষ্যৎ’ নিশ্চিতের আহ্বান প্রধানমন্ত্রী        অবশেষে হাসপাতাল ছাড়লেন ইউএনও ওয়াহিদা        অবশেষে হাসপাতাল ছাড়লেন ইউএনও ওয়াহিদা     
২১৯

যে কারণে ইফতারে লেবুর শরবত খেতে ভুলবেন না

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩ মে ২০২০  

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

রোজায় সারা দিন না খেয়ে থাকতে হয়। ফলে অনেকেই ক্লান্ত অনুভব করেন। ইফতারে এক গ্লাস লেবুর শরবত সেই ক্লান্তিভাব নিমিষেই দূর করতে পারে। লেবুতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি রয়েছে—যা জ্বর, সর্দি, কাশি ও ঠান্ডাজনিত সমস্যায় বেশ উপকারি। এ ছাড়া লেবুর রয়েছে নানা পুষ্টিগুণ।

লেবুর কয়েকটি গুণাগুণ এক নজরে দেখে নিন—

শক্তি বৃদ্ধি করে

লেবুর শরবত দ্রুত গতিতে শরীরে শক্তি বৃদ্ধি করে। প্রতিদিন লেবুর শরবত খেলে মেজাজ থাকবে ভালো আর কাজেও পাবেন শক্তি।

হজম শক্তি বৃদ্ধি করে

লেবুর শরবত হজম শক্তি বৃদ্ধিতে খুব কার্যকর। এক গ্লাস কুসুম গরম পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে খেলেই হজম শক্তি বাড়ে। গ্যাসট্রিকের সমস্যা যাদের আছে লেবু খুব উপকারী। কারণ, লেবুর পানি খুব সহজে পরিপাক নালির মধ্যে থাকা টক্সিন শরীর থেকে বের করে দেয়।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি

লেবুতে প্রচুর ভিটামিন সি রয়েছে। যে কারণে এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। তাই ইফতারে নিয়মিত লেবুর শরবত খান।

ওজন কমায়

ওজন কমাতে লেবুর তুলনা নেই। হালকা গরম পানিতে লেবুর রসের সঙ্গে মধু মিশিয়ে খেলে আরও ভালো ফল পাবেন।

ভাইরাস ও ব্যাক্টেরিয়া প্রতিরোধী

লেবু ভাইরাস ও ব্যাক্টেরিয়া প্রতিরোধেও দারুণ কাজ করে। ভাইরাস ও ব্যাক্টেরিয়ার সংক্রমণ এড়াতে লেবুর শরবত খেতে পারেন। বিশেষ করে ফ্লু, সর্দি-কাশি ও গলাব্যথা হলে লেবুর শরবত খেতে পারেন।

মস্তিষ্ক সতেজ রাখে

লেবুর মধ্যে রয়েছে অতিমাত্রায় পটাশিয়াম ও ম্যাগনেশিয়াম। যা শুধু মস্তিষ্ক নয়, স্নায়ুকেও সতেজ রাখতে সাহায্য করে। চিন্তাশক্তি বাড়ায়।

ক্যানসার প্রতিরোধক

লেবুতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট বিভিন্ন ধরনের ক্যানসারের ঝুঁকি কমায়। লেবু রক্ত পরিষ্কার করতেও সাহায্য করে এবং মুখের স্বাদ বৃদ্ধি করে।